শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১ ইং, বাংলা ২২, ফাল্গুন ১৪২৭
  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৫৯৭৩১৪১১৬

সাকিবের শ্রীলঙ্কা সফর তার ফিটনেসের ওপর নির্ভর করছে

সাকিবের শ্রীলঙ্কা সফর তার ফিটনেসের ওপর নির্ভর করছে

আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে শীলঙ্কা সফর করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। তবে ঐ সিরিজে দেশের সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান অংশ নিতে পারবেন কি-না তা এখনো নিশ্চিত করতে পারেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ ফিক্সিংএর প্রস্তাব পাওয়ার তথ্য আইসিসিকে না জানানোয় এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন সাকিব। সাকিবের উপর নিষেধাজ্ঞা শেষ হবে আগামী ২৯ অক্টোবর মাসে । আর অক্টোবর থেকেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ শুরু হবে। অবশ্য টি-টোয়েন্টি সিরিজ এখনো নিশ্চিত হয়নি। তাই গুঞ্জন উঠেছে, নিষেধাজ্ঞা শেষেই কি, সাকিবকে দলে পাওয়া যাবে কি-না! তবে ধারনা করা হচ্ছে টেস্ট সিরিজে সাকিবকে পাওয়া যাবে না টি-টোয়েন্টি সিরিজে দেশের সাবেক অধিনায়ককে পাওয়া যাবে।সাকিবের ফেরার বিষয় নিয়ে আজ কথা বলেছেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান। তিনি বলেছেন, অবশ্যই সাকিব আমাদের দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। তার অর্ন্তভুক্তি দলের শক্তি বাড়াবে। তবে আমরা এখনো তার ইস্যুতে কথা বলতে পারিনি। আমরা তার প্রত্যাবর্তনের বিষয়ে আলোচনা করেছি, কিন্তু এটি কিভাবে হবে তা নিয়ে এখনো আলোচনা হয়নি। আমরা বিসিবি সভাপতি, কোচ ও নির্বাচকদের সাথে কথা বলবো।
আকরাম জানিয়েছেন, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে দেশে ফিরবেন কোচিং স্টাফরা। এরপর শ্রীলংকা সফরের জন্য সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে কন্ডিশনিং ক্যাম্প হবে। সাকিবের ফিটনেস ও ম্যাচ ফিটনেসের বিষয়ে কথা বলেন আকরাম। তার মতে, হঠাৎ করে মাঠে ফিরতে তার সমস্যা হতে পারে। আকরাম বলেছেন, দলের সাথে সাকিবকে অনুশীলনের অনুমতি দিবে কি-না আইসিসি, তা আমি জানি না। কারন ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত পর্যন্ত সাকিবের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এরপর আসবে ম্যাচ অনুশীলনের ইস্যু। এগুলো নিয়ে আমাদের বিস্তারিত আলোচনা করতে হবে।
সাকিবের ফিটনেস নিয়ে সর্তক বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোও। তিনি বলেছেন, ‘সাকিবকে নিশ্চিত করতে হবে, সে ফিট আছে এবং ব্যাটিং-বোলিংও শুরু করতে হবে। শ্রীলঙ্কা সফরটি নিশ্চিত হলে আমাদের একত্রিত হতে হবে। তাহলে আমরা সিদ্বান্ত নিতে পারবো। তিনি আরো বলেছেন, ‘এখনো অনেক সময় বাকী রয়েছে। এখন মাত্র আগস্ট চলছে। তার নিষেধাজ্ঞা শেষ হতে আরো আড়াই মাস লাগবে। যখন সে ফিট হবে এবং খেলতে পারবে, তখন আমরা সকল বাঁধা পেরোতে পারবো। ডোমিঙ্গো আরো জানিয়েছেন, ‘ক্রিকেট ছাড়া আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরাটা অনেক বেশি কঠিন। আমার মনে হয়, তাকে কিছু ম্যাচ খেলার সুযোগ করে দেওয়া দরকার। সে বিশ্বসেরা খেলোয়াড়, তাই আমি নিশ্চিত, সে দারুণভাবে ক্রিকেটে ফিরতে পারবে।

ট্যাগস:


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়