শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১ ইং, বাংলা ২২, ফাল্গুন ১৪২৭
  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৫৯৮৪২৮৭৮৭

সেই ফারহানাকে বাইক কিনে দেবেন শ্বশুর

সেই ফারহানাকে বাইক কিনে দেবেন শ্বশুর

মোটরসাইকেল বহর নিয়ে গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে ব্যতিক্রমী নজির সৃষ্টি করেছেন যশোর শহরের সার্কিট হাউজপাড়ার মেয়ে ফারহানা। গত ১৩ আগস্ট মোটরসাইকেল বহর নিয়ে গায়ে হলুদে আসার সেই ছবি ও ভিডিও এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে ঘুরছে। এ নিয়ে চলছে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা। 
তবে ফারহানার হবু শ্বশুর বিমানবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ওয়ারেন্ট কর্মকর্তা আবদুর রশিদ পুত্রবধূর এই অভিনব কাণ্ডে খুশিই হয়েছেন। বিষয়টিকে তিনি ইতিবাচকভাবেই দেখছেন। একইসঙ্গে ছেলের বউকে নতুন একটি বাইক কিনে দেয়ারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিন। 
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ) থেকে এইচআরে এমবিএ পড়ালেখা করা ফারহানার বিয়ে হয়েছে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার হাসনাইন রাফির সঙ্গে। রাফি পাবনার কাশিনাথপুরের বাসিন্দা হলেও কর্মসূত্রে থাকে গাজীপুরে।
বাইক চালিয়ে ভাইরাল হওয়া ফারহানার আরও একটি পরিচয় আছে। তিনি বাংলা চলচ্চিত্রের সোনালী যুগের নায়িকা ববিতা, সুচন্দা ও চম্পার ভাতিজি।
ফারহানার শ্বশুর আবদুর রশিদ বলেছেন, ‘আমার পুত্রবধূ মোটরসাইকেল চালাতে পারে। সে ঢাকায় থাকে। পড়াশোনার পাশাপাশি একটি কোম্পানিতে সে চাকরিও করে। যদিও করোনার কারণে চাকরিটা ছেড়ে দিয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আবারও চাকরিতে যোগ দেবে। ঢাকায় অনেক সম্ভ্রান্ত পরিবারের মেয়েদেরও বাইক চালিয়ে চাকরি ও ব্যবসা করতে দেখেছি আমি। এতে আমি দোষের কিছু দেখতেছি না। আমি ওকে ওর পছন্দের একটি বাইক কিনে দেবো।
ফারহানা বলেছেন, ‘আমার বাইক চালিয়ে গায়ে হলুদে আসার বিষয়টি নিয়ে অনেকে আনন্দিত হয়েছে। তবে নেটিজেনরা বিষয়টি সহজভাবে নিতে পারছেন না। তারা এটিকে ঘিরে আমার চারিত্রিক সনদ দিতে চাইছে। এটা আমি মানতে পারছি না। সুযোগ পেলে আমি হেলিকপ্টার চালানোও শিখতাম। আমার স্বামীর পক্ষ থেকে কোনও কিছুতে আপত্তি নেই।
শ্বশুরের প্রতিশ্রুতর বাইকটি ঢাকা থেকে কেনার ইচ্ছে রয়েছে বলেও জানান ফারহানা। 

ট্যাগস:


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়